1. mdmohaiminul77@gmail.com : md mohaiminul : md mohaiminul
  2. bd2daynews20@gmail.com : admin :
  3. kamranahmed141@gmail.com : kamran ahmed : kamran ahmed
সর্বশেষ সংবাদ :
দৌলতপুরের দুর্গম চরে আগামীকাল বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত অর্ধলক্ষ মানুষ ইংরেজী নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম কে হচ্ছে আগামীর নৌকার মাঝি বর্তমান চেয়ারম্যান নাকি ইউনিয়ন আ.লীগের সাবেক সভাপতি না সাধারণ সম্পাদক?? জেল হত্যা দিবস উপলক্ষে দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের আলোচনা সভা ও দোয়া মহফিল অনুষ্ঠিত দৌলতপুরে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে যুবলীগ নেতার সংবাদ সম্মেলন দৌলতপুর উপজেলা বাসীকে ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রকৌশলী মনিরুল ইসলাম ভাঙ্গা উপজেলার ১০ং কালামৃধা ইউনিয়ন বাসীকে ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোঃ বাবুল মুন্সী  দৌলতপুরে মাসুদকে অস্ত্র মাদক দিয়ে ফাঁসানোর ফোন আলাপ ফাঁস থানায় জিডি জাগরণ সংবাদ এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকি পালিত প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

কে হচ্ছে আগামীর নৌকার মাঝি বর্তমান চেয়ারম্যান নাকি ইউনিয়ন আ.লীগের সাবেক সভাপতি না সাধারণ সম্পাদক??

  • আপডেট টাইমঃ শুক্রবার, ২০ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৬৫ বার পঠিত
রামকৃষ্ণপুর ইউপি নির্বাচনী হাওয়া

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  সময় ঘনিয়ে আসছে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের। আইন অনুযায়ী ২০২১ সালের মার্চের তৃতীয় সপ্তাহের আগে ইউপি নির্বাচন শুরু করতে হবে, আর শেষ করতে হবে জুনের আগেই। এ নিয়ে ইতোমধ্যে নির্বাচনের উপযোগী ইউনিয়ন পরিষদের তালিকা চেয়ে জেলা প্রশাসকদের চিঠি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

এখনও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হলেও ইতিমধ্যে নির্বাচন ঘিরে দৌলতপুর উপজেলার ৫নং রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নে বইছে আগাম নির্বাচনী হাওয়া। চায়ের দোকানে-দোকানে বইছে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নিয়ে বিশ্লেষণ। নড়েচড়ে উঠেছে চেয়ারম্যান ও সদস্য পদের সম্ভাব্য প্রার্থীরা। অনেকেই আগাম প্রচার প্রচারণা শুরু করে দিয়েছেন। দলীয় নেতাকর্মী ও ভোটারদের সমর্থন আদায়ে ব্যানার, ফেস্টুন ও চা-চক্রে নিজেদের জানান দিচ্ছেন অনেকেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সমানতালে চলছে প্রচার-প্রচারণা। শুধু মাঠেই নয়, দলীয় সমর্থন পেতে একই ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থীর পক্ষ থেকে চলছে নানারকম তদবির, রাজনৈতিক কার্যালয় হয়ে উঠেছে সরগরম। দলীয় সমর্থন পাওয়ার জন্য তৎপর হয়ে উঠেছে ওই ইউনিয়নের সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা গেছে, এই ইউনিয়নে আয়োতন ১২৩৬০(একর)। ইউনিয়নটির জনসংখ্যা ২৬ হাজার ১৬৮জন প্রায়। এরমধ্যে মোট ভোটার সংখ্যা ১৭৩৮৭ জন। ৮৭৬৪ জন নারী ভোটারের বিপরীতে পুরুষ ভোট ৮৭৬৪ জন। ২০১৬ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ থেকে দলীয় মনোয়ন পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ সিরাজ মন্ডল। তাঁর সাথে প্রতিদ্ধন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন বিএনপির বিএনপির রিয়াজুল হক ও সতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল ইসলাম।

আওয়ামী লীগ থেকে সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে যাদের নাম শুনা যাচ্ছে তারা হলেন, আওয়ামী লীগ নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজ মন্ডল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ নাসির উদ্দীন মাষ্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল করিম, আওয়ামী লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আলাউদ্দিন মেম্বার, দৌলতপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক মোঃ রিফাজ উদ্দীন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হামিদ, তাঁতীলীগ নেতা মেহেদী হাসান এছাড়াও শোনা যাচ্ছে বিএনপি নেতা সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ রিয়াজুল হক, জাসদ নেতা আজিজুল হক, জাতীয় পার্টি নেতা ইউসুফ আবু জাফর পাপ্পু। এছাড়াও আরও শুনা যাচ্ছে মরহুম আব্দুর সামাদ চেয়ারম্যানের সুযোগ্য পুত্র মেহেদী হাসান এর কথা।

বলতে গেলে সোনার হরিণ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান অনেকে। তবে শক্তিশালী অবস্থানে আছেন তিনজন।

তারা হলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ সিরাজ মন্ডল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মোঃ নাসির উদ্দীন মাষ্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল করিম।

সরেজমিনে গেলে স্থানীয়রা বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজ মন্ডল আসন্ন নির্বাচনেরও দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। তাঁর পাশাপাশি আসন্ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে ইতিমধ্যে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের প্রার্থীরা আগাম প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে।

মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজ মন্ডল বলেন, চেয়ারম্যান হিসাবে সব সময় তিনি সরকারি এবং জনগণের কাজে নিজেকে নিয়োজিত রাখছেন। তাছাড়া এলাকায় জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে বিশাল একটি ভোট ব্যাংক সৃষ্টি করছেন। তিনি আগামী ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন চাইবেন এবং নৌকার টিকিট পেলে এবারও তিনি জিতবেন বলে আত্মবিশ্বাসী।

সম্ভাব্য প্রার্থী প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মোঃ নাসির উদ্দীন মাষ্টার বলেন, দলের একজন পরীক্ষিত কর্মী হিসেবে আসন্ন নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চাইতে জনগন এবং দলীয় নেতাকর্মীরা তাকে চাপ প্রয়োগ করছেন। তাই তিনি দলীয় নেতৃবৃন্দের কাছে মনোনয়ন চাইবেন। তিনি আশাবাদি রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়ন কে একটি মডেল ইউনিয়নে রুপান্তর করতে দল তাকে এবার মূল্যায়ন করবেন।
(নাসির উদ্দীন মাষ্টার) বর্তামনে তিনি অসুস্থ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. রেজাউল করিম বলেন, আমার রাজনৈতিক জীবনে দীর্ঘ দিন ধরে ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি ও যুব লীগের রাজনীতি করেছি এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগে সাধারণ সম্পাদকের হিসাবে সফল ভাবে দায়িত্ব পালন করেছি দল যদি আমাকে যোগ্য মনে করেন যদি নৌকা টিকেট দেন তাহলে আমি আগামী নির্বাচনে নৌকা নিয়ে জয় লাভ করবো ইনশাআল্লাহ্।

এদিকে, বিএনপি থেকে একক প্রার্থী হিসেবে নাম শুনা যাচ্ছে সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ রিয়াজুল হক। রিয়াজুল হক বলেন যদি সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন হয় তাহলে বিএনপি থেকে ধানের শীষ নিয়ে জয় লাভ করবো।

তবে ইউনিয়ন ঘুরে সাধারণ জনগণ সাথে কথা বলে জানা যায় যে আমাদের এলাকা চর এলাকা এই চর এলাকার উন্নয়ন নিয়ে যে ব্যক্তি কাজ করবেন এবং সৎ ও যোগ্য ব্যক্তিই কে আমরা নির্বাচিত করবো।

খবরটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর
BD 2 DAY NEWS এর প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Site Customized By NewsTech.Com